বর্ণাঢ্য আয়োজনে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

বর্ণাঢ্য আয়োজনে বরিশালে উদযাপিত হয়েছে গৌরব-ঐতিহ্যের সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭৩ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। “শিক্ষা-শান্তি-প্রগতি” এই স্লোগান নিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর প্রথম প্রহর ৪ঠা জানুয়ারি রাত ১২টা ১ মিনিট থেকে দিনভর বরিশাল জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের উদ্যোগে জন্মদিন পালন করা হয়।

এছাড়াও সোমবার বরিশাল মহানগরীর ৩০টি ওয়ার্ড, বিভিন্ন সরকারি কলেজ এবং জেলার বিভিন্ন উপজেলা ও পৌরসভা ছাত্রলীগের উদ্যোগে বর্ণাঢ্য আয়োজনে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করেন সাবেক এবং বর্তমান নেতৃবৃন্দ।

কর্মসূচির অংশ হিসেবে ৪ঠা জানুয়ারি প্রথম প্রহর নগরীর সদর রোডস্থ শহীদ সোহেল চত্ত্বরে আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ের সামনে কেক কাটার আয়োজন করে জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগ।

রাত ১২টা ১ মিনিট বাজতেই বিশাল কেক কেটার মধ্যে দিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচি শুরু করেন তারা। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে কেক কেটে কর্মসূচির শুভ উদ্বোধন করেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বরিশাল সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য তালুকদার মো. ইউনুস, বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র রফিকুল ইসলাম খোকন সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

এসময় বরিশাল জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হেমায়েত উদ্দিন সুমন সেরনিয়াবাত, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, সহ-সভাপতি আতিকউল্লাহ মুনিম, সাজ্জাদ সেরনিয়াবাত, সাংগঠনিক সম্পাদক রাজিক হোসেন খান, মহানগর ছাত্রলীগ নেতা মাইনুল হোসেনসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

এদিকে, সোমবার সকাল ১০টায় নগরীর শহীদ সোহেল চত্ত্বরে আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয় সংলগ্ন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মূর‌্যালে পুষ্পমাল্য অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা।

বরিশাল জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের পক্ষে শ্রদ্ধা নিবেদনকালে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হেমায়েত উদ্দিন সুমন সেরনিয়াবাত, সাধারণ সম্পাদক রাজ্জাক ভুইয়া ও মহানগর ছাত্রলীগ নেতা রইচ আহমেদ মান্না, মাইনুল হোসেনসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

এছাড়া বিকালে দলীয় কার্যালয়ের সামনে অস্থায়ী মঞ্জে আয়োজন করা হয় আলোচনা সভা। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ।

এসময় অতিথি হিসেবে আরও বক্তব্য রাখেন মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ.কে.এম জাহাঙ্গীর হোসাইন, বরিশাল জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আফজালুল করিম, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সাইদুর রহমান রিন্টু, বিসিসি’র প্যানেল মেয়র রফিকুল ইসলাম খোকন, আওয়ামী লীগ নেতা হাসান মাহমুদ বাবু, মিজানুর রহমান প্রমুখ।

আলোচনা সভা পরবর্তী নগরীতে এক বর্ণাঢ্য আনন্দ র‌্যালি বের করা হয়। সন্ধ্যা সাড়ে ৫টার দিকে দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে বের হওয়া র‌্যালিটিবর্ণাঢ্য আয়োজনে বরিশালে উদযাপিত হয়েছে গৌরব-ঐতিহ্যের সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭৩ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। “শিক্ষা-শান্তি-প্রগতি” এই স্লোগান নিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর প্রথম প্রহর ৪ঠা জানুয়ারি রাত ১২টা ১ মিনিট থেকে দিনভর বরিশাল জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের উদ্যোগে জন্মদিন পালন করা হয়।

এছাড়াও সোমবার বরিশাল মহানগরীর ৩০টি ওয়ার্ড, বিভিন্ন সরকারি কলেজ এবং জেলার বিভিন্ন উপজেলা ও পৌরসভা ছাত্রলীগের উদ্যোগে বর্ণাঢ্য আয়োজনে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করেন সাবেক এবং বর্তমান নেতৃবৃন্দ।

কর্মসূচির অংশ হিসেবে ৪ঠা জানুয়ারি প্রথম প্রহর নগরীর সদর রোডস্থ শহীদ সোহেল চত্ত্বরে আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ের সামনে কেক কাটার আয়োজন করে জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগ।

রাত ১২টা ১ মিনিট বাজতেই বিশাল কেক কেটার মধ্যে দিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচি শুরু করেন তারা। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে কেক কেটে কর্মসূচির শুভ উদ্বোধন করেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বরিশাল সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য তালুকদার মো. ইউনুস, বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র রফিকুল ইসলাম খোকন সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

এসময় বরিশাল জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হেমায়েত উদ্দিন সুমন সেরনিয়াবাত, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, সহ-সভাপতি আতিকউল্লাহ মুনিম, সাজ্জাদ সেরনিয়াবাত, সাংগঠনিক সম্পাদক রাজিক হোসেন খান, মহানগর ছাত্রলীগ নেতা মাইনুল হোসেনসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

এদিকে, সোমবার সকাল ১০টায় নগরীর শহীদ সোহেল চত্ত্বরে আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয় সংলগ্ন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মূর‌্যালে পুষ্পমাল্য অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা।

বরিশাল জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের পক্ষে শ্রদ্ধা নিবেদনকালে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হেমায়েত উদ্দিন সুমন সেরনিয়াবাত, সাধারণ সম্পাদক রাজ্জাক ভুইয়া ও মহানগর ছাত্রলীগ নেতা রইচ আহমেদ মান্না, মাইনুল হোসেনসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

এছাড়া বিকালে দলীয় কার্যালয়ের সামনে অস্থায়ী মঞ্জে আয়োজন করা হয় আলোচনা সভা। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ।

এসময় অতিথি হিসেবে আরও বক্তব্য রাখেন মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ.কে.এম জাহাঙ্গীর হোসাইন, বরিশাল জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আফজালুল করিম, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সাইদুর রহমান রিন্টু, বিসিসি’র প্যানেল মেয়র রফিকুল ইসলাম খোকন, আওয়ামী লীগ নেতা হাসান মাহমুদ বাবু, মিজানুর রহমান প্রমুখ।

আলোচনা সভা পরবর্তী নগরীতে এক বর্ণাঢ্য আনন্দ র‌্যালি বের করা হয়। সন্ধ্যা সাড়ে ৫টার দিকে দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে বের হওয়া র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে পুনরায় দলীয় কার্যালয়ের সামনে এসে শেষ হয়।

পরে সেখানে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ সকল শহীদদে এবং ছাত্রলীগের প্রয়াত নেতাদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া-মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া মোনাজাত পরিচালনা করেন মহানগর আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা সাইদুর রহমান কাশেমী।
শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে পুনরায় দলীয় কার্যালয়ের সামনে এসে শেষ হয়।

পরে সেখানে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ সকল শহীদদে এবং ছাত্রলীগের প্রয়াত নেতাদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া-মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া মোনাজাত পরিচালনা করেন মহানগর আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা সাইদুর রহমান কাশেমী।