আলোচনায় দুই মেয়র পত্নী : নবগঠিত মহানগর আ.লীগ কমিটি

নিজস্ব প্রতিনিধি:

গত রোববার রাতে গণমাধ্যমে প্রেরিত বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে প্রকাশিত হয় বরিশাল মহানগর আওয়ামীলীগের নতুন পূর্ণাঙ্গ কমিটি। সর্বশেষ সম্মেলনের প্রায় ১৩ মাস পরে গঠিত কমিটির সদস্য সংখ্যা ৭৫ জন। তবে নতুন এ কমিটির দুজন নারী সদস্যের নাম বিশেষ দৃষ্টি কেড়েছে ইতোমধ্যে।

একজন বরিশালের সাবেক মেয়র প্রয়াত শওকত হোসেন হিরনের স্ত্রী জেবুন্নেসা আফরোজ অন্যজন বর্তমান মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ’র সহধর্মিণী লিপি আব্দুল্লাহ। প্রথমজন কমিটিতে জায়গা পেয়েছেন একমাত্র নারী সহ সভাপতি হিসেবে আরেকজন অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন সদস্য হিসেবে।

এই দুজনার মধ্যে জেবুন্নেসা আফরোজ রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন। দশম জাতীয় সংসদের উপ নির্বাচনে স্বামীর স্থলাভিষিক্ত হন বরিশাল সদর আসনের সাংসদ হিসেবে।২০১৬ সালে গঠিত হওয়া নগর আওয়ামীলীগের কমিটিতে পেয়েছিলেন সদস্য পদ।

তবে তাকে নিয়ে সেসময় জল্পনা কল্পনা কম হয় নি। সেবার মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি কিংবা সম্পাদক হবেন তিনি এমন গুঞ্জন উঠেছিল। কিন্তু গোলাম আব্বাস চৌধুরী দুলাল কে সভাপতি ও একেএম জাহাঙ্গীর কে সম্পাদক করে গঠিত হওয়া সেই কমিটিতে তাকে রাখা হয় জেষ্ঠ্য সদস্য হিসেবে।

অন্যদিকে, লিপি আব্দুল্লাহ ২০১৮ সালে স্বামীর নির্বাচনী প্রচারণায় নেমে দৃষ্টি কাড়েন। নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ডে অনুষ্ঠিত জনসংযোগে অংশ নেন তিনি। এরপর থেকে নগরীর বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে পাওয়া গেছে তাঁর সরব উপস্থিতি। তবে এর মধ্যে সন্তানদের নিয়ে দীর্ঘদিন তিনি কাটিয়েছেন প্রবাস জীবন।

বেশ লম্বা সময় ধরে সক্রিয় রাজনীতির বাইরে জেবুন্নেসা আফরোজ নিজেও। সর্বশেষ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিজ এলাকায় আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রাপ্ত জাহিদ ফারুকের প্রচারণায় অংশ নিয়েছিলেন তিনি। এরপর দলীয় কোন কার্যক্রমে খুব একটা দেখা যায় নি তাকে।

তাদের ব্যাপারে বর্তমান মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি একেএম জাহাঙ্গীর বলেন,‘ তারা দুজনই আওয়ামী পরিবার থেকে উঠে আসা। দলের জন্য তাদের অবদান রয়েছে। এছাড়া বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ নারীর ক্ষমতায়নে বিশ্বাস করে। আমাদের দলীয় হাইকমান্ড চায় রাজনীতিতে নারীরা সামনের দিকে এগিয়ে আসুক’। সামনের দিনগুলোতে এই দুজন নেত্রী দলকে শক্তিশালী করতে ভূমিকা রাখবে বলেও জানান এই নেতা।