অপরাধ মুক্ত সমাজ গড়তে পুলিশকে তথ্যদিয়ে সহযোগিতা করুন: ডিসি খাইরুল আলম

নিজস্ব প্রতিবেদক:

মুজিব বর্ষের অঙ্গীকার পুলিশ হবে জনতার।বর্তমানে আমরা মুজিববর্ষ অতিক্রম করছি।মুজিব বর্ষে জনতার পুলিশ হতে বাংলাদেশ পুলিশ নানামুখী কার্যক্রম গ্রহন করেছে।ওপেন হাউজ ডে ও বিট পুলিশিংয়ের মাধ্যমে থানার সেবাটা সাধারন মানুষের দোড়গোড়ায় পৌছে দিতে চাই।আগে মানুষকে থানায় গিয়ে পুলিশি সেবা নিতে হতো এখন আর কাউকে থানায় যেতে হবেনা বিট পুলিশিংয়ের মাধ্যমে ঘরে বসেই মানুষ সেবা পাবে।এয়ারপোর্ট থানায় আপনাদের সুবিধার্থে ২২ টি বিট কার্যালয় স্থাপন করা হয়েছে।পুলিশ ও জনতা মিলে একসাথে কাজ করলে অপরাধ মুক্ত সমাজ গড়া সম্ভব হবে।সমাজে অপরাধ প্রবনতা কমে যাবে।একটি সমৃদ্ধশালীদেশ গড়তে বিটপুলিশিং এর মাধ্যমে টেকসই নিরাপত্তা ব্যাবস্থা গড়ে তুলতে চাই।উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে পুলিশ ও জনতামিলে একসাথে কাজ করে হোয়াইট কালার ক্রিমিনাল ও অপরাধ মুক্ত সমাজ গড়তে হবে।

শনিবার (২৮ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১০ টায় লাকুটিয়া,সারসী,বিহঙ্গল ১৩ নং বিট পুলিশিং কার্যালয় উদ্ধোধন কালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় তিনি আরও বলেন,আজ থেকে একশত বছর পূর্বে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মমুজিবুর রহমান এদেশে জন্মগ্রহন করেছিলেন।যার জন্ম না হলে আমরা এ স্বাধীন দেশ পেতাম না।আমরা স্বাধীন ভাবে ব্যাবসা বানিজ্য চাকুরী কিছুই করতে পারতাম না।বর্তমানে আমরা সবাই বঙ্গবন্ধুর উপহার দেয়া স্বাধীন দেশের স্বাধীন নাগরিক।তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নের্তৃত্বে আমাদের দেশ আজ এগিয়ে যাচ্ছে।তার দুরদর্শী নের্তৃত্বের কারনে বাংলাদেশ একটি সমৃদ্ধশালীদেশ হিসেবে পরিনত হচ্ছে।আমাদের সমাজকে সমৃদ্ধ করতে হলে মাদক মুক্ত অপরাধ মুক্ত সমাজ ব্যাবস্থা গড়তে হবে।মাদকের মাধ্যমে সমাজে নানা প্রকার অপরাধ ছড়ায়।তাই আমাদের প্রজন্মকে মাদক মুক্ত রাখতে হলে মাদক মুক্ত সমাজ গড়তে হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার উত্তর মোঃ ফজলুল করিম বলেন,বিট পুলিশিংয়ের মাধ্যমে পুলিশ ও জনগনের মাঝে দুরত্ব কমে এসেছে।সমাজে কিছু কিছু অপরাধ আছে যা নিজেরাই সমাধান করা সম্ভব।এরকম সমস্যা থানায় না গিয়ে বিট অফিসের মাধ্যমে সমাধান করতে পারবেন।যেখানেই সন্ত্রাসী থাকবে সেখানে তাদের প্রতিহত করতে আমরা প্রস্তুত আছি।আপনাদের এলাকায় মাদক ব্যাবসায়ীদের সম্পর্কে পুলিশকে তথ্যদিয়ে সহায়তা করুন।আমরা সমাজ থেকে মাদক, জঙ্গীবাদ,চাঁদাবাজি দুর করতে চাই।আমরা কঠোর হস্তে এদেরকে নির্মুল করে মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ মুক্ত সমাজ গড়তে চাই।

এয়ারপোর্ট থানার সহকারী কমিশনার নাসরিন জাহান বলেন,আগে পুলিশের সেবা নিতে আপনাদের থানায় যেতে হতো,এখন আর আপনাদের থানায় যেতে হবেনা।১৯৭১ সালে বীর মুক্তিযোদ্ধারা সোনার বাংলা গড়ার জন্য দেশকে স্বাধীন করেছিলেন।আর সে সোনার বাংলা গড়তে হলে সোনার পুলিশ হতে হবে।আমরা সে লক্ষ্যে কাজ করেযাচ্ছি।তাই সমাজের বিভিন্ন অপরাধ সম্পর্কে পুলিশকে তথ্য দিয়ে সহায়তা করুন।

সভাপতির বক্তব্যে এয়ারপোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ জাহিদ বিন আলম বলেন,ইভটিজিং,মাদক মুক্ত সমাজ গড়তে বিট পুলিশিংয়ের মাধ্যমে পুলিশি সেবাকে জনগনের দোড়গোড়ায় পৌছে দিতে চাই।তাই আপনারা সকল প্রকার তথ্যদিয়ে বিট অফিসারকে সহায়তা করুন।যে কোন বিপদ আপদে পুলিশ আপনাদের পাশে থেকে সব সময় সার্বিক সহযোগিতা করবে।

বিট অফিসার এস আই রায়হানুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্যে রাখেন,বরিশাল সদর উপজেলা ভাইসচেয়ারম্যান মোঃ মাহাবুবুর রহমান মধু,এয়ারপোর্ট থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শাহ মোঃ ফয়সাল,কাশীপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ নুরুল ইসলাম,বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ মালেক প্রমুখ।