করোনা : পাঁচ লক্ষাধিক শনাক্তের দিনে আট হাজার মৃত্যু

গত ২৪ ঘণ্টায় নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে সারা পৃথিবীতে আরো প্রায় ৮ হাজার মানুষ মারা গেছেন। একই সময়ে নতুন করে আরো পাঁচ লক্ষাধিক মানুষের শরীরে ভাইরাসটি শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে এই বৈশ্বিক মহামারীতে মৃতের সংখ্যা ১১ লাখ সাড়ে ৭৯ হাজার ছাড়িয়েছে। সরকারি হিসেবে, মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪ কোটি সাড়ে ৫০ লাখ ছাড়াল।

পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার’র তথ্য মতে, আজ ২৯ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টা পর্যন্ত সারা পৃথিবীতে করোনায় আক্রান্ত বেড়ে ৪ কোটি ৪৭ লাখ ৫০ হাজার ৩৫৯ জনে দাঁড়িয়েছে। এদের মধ্যে ১১ লাখ ৭৯ হাজার ৯২ জন ইতোমধ্যে মৃত্যুবরণ করেছেন। বিপরীতে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩ কোটি ২৭ লাখ ২৫ হাজার ৬২৬ জন। বর্তমানে চিকিৎসাধীন আছেন ১ কোটি ৮ লাখ ৪৫ হাজার ৬৪১ জন করোনারোগী, যাদের মধ্যে ৮১ হাজার ১৯৭ জনের অবস্থা গুরুতর।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত পৃথিবীর সর্বোচ্চ ৯১ লাখ ২০ হাজার ৭৫১ জন মানুষের শরীরে করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। ভারতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৮০ লাখ ৩৮ হাজার ৭৬৫ জনের শরীরে ভাইরাসটির উপস্থিতি ধরা পড়েছে। ব্রাজিলে তৃতীয় সর্বোচ্চ ৫৪ লাখ ৬৯ হাজার ৭৫৫ জনের শরীরে সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এছাড়া রাশিয়ায় চতুর্থ সর্বোচ্চ ১৫ লাখ ৬৩ হাজার ৯৭৬ জন ও ফ্রান্সে পঞ্চম সর্বোচ্চ ১২ লাখ ৩৫ হাজার ১৩২ জনের কোভিড-১৯ ধরা পড়েছে।

শীর্ষ দশে থাকা অন্য দেশগুলো হলো—স্পেন (১১ লাখ ৯৪ হাজার ৬৮১ জন), আর্জেন্টিনা (১১ লাখ ৩০ হাজার ৫৩৩ জন), কলম্বিয়া (১০ লাখ ৪১ হাজার ৯৩৫ জন), যুক্তরাজ্য (৯ লাখ ৪২ হাজার ২৭৫ জন) ও মেক্সিকো (৯ লাখ ৬ হাজার ৮৬৩ জন)।

কোভিড-১৯ মহামারীতে সবচেয়ে বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। এখন পর্যন্ত দেশটিতে ২ লাখ ৩৩ হাজার ১৩০ জনের প্রাণ কেড়েছে ভাইরাসটি। ব্রাজিলে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১ লাখ ৫৮ হাজার ৪৬৮ জন। ভারতে তৃতীয় সর্বোচ্চ ১ লাখ ২০ হাজার ৫৬৩ জন মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া মেক্সিকোতে চতুর্থ সর্বোচ্চ ৯০ হাজার ৩০৯ জন ও যুক্তরাজ্যে পঞ্চম সর্বোচ্চ ৪৫ হাজার ৬৭৫ জনের প্রাণ কেড়েছে করোনা।

এ হিসেবে শীর্ষ দশে রয়েছে—ইতালি (মৃত্যু ৩৭ হাজার ৯০৫ জন), ফ্রান্স (মৃত্যু ৩৫ হাজার ৭৮৫ জন), স্পেন (মৃত্যু ৩৫ হাজার ৪৬৬ জন), পেরু (মৃত্যু ৩৪ হাজার ৩১৫ জন) ও ইরান (মৃত্যু ৩৩ হাজার ৭১৪ জন)।

এছাড়া কলম্বিয়ায় ৩০ হাজার ৭৫৩ জন (১১তম), আর্জেন্টিনায় ৩০ হাজার ৭১ জন (১২তম), রাশিয়ায় ২৬ হাজার ৯৩৫ জন (১৩তম), দক্ষিণ আফ্রিকায় ১৯ হাজার ১১১ জন (১৪তম), চিলিতে ১৪ হাজার ৩২ জন (১৫তম), ইন্দোনেশিয়ায় ১৩ হাজার ৬১২ জন (১৬তম), ইকুয়েডরে ১২ হাজার ৬০৮ জন (১৭তম), বেলজিয়ামে ১১ হাজার ৩৮ জন (১৮তম), ইরাকে ১০ হাজার ৭৭০ জন (১৯তম), জার্মানিতে ১০ হাজার ৩৫৯ জন (২০তম), কানাডায় ১০ হাজার ৩২ জন (২১তম), তুরস্কে ১০ হাজার ২৭ জন (২২তম), বলিভিয়ায় ৮ হাজার ৬৯৪ জন (২৩তম), নেদারল্যান্ডসে ৭ হাজার ২০২ জন (২৪তম), ফিলিপাইনে ৭ হাজার ১১৪ জন (২৫তম), পাকিস্তানে ৬ হাজার ৭৭৫ জন (২৬তম), রোমানিয়ায় ৬ হাজার ৬৮১ জন (২৭তম), মিসরে ৬ হাজার ২৩৪ জন (২৮তম), সুইডেনে ৫ হাজার ৯২৭ জন (২৯তম) ও বাংলাদেশে ৫ হাজার ৮৬১ জন (৩০তম) করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন।