করোনায় প্রাণ গেল আরও ২৪ জনের শনাক্ত ১৫৪৫

দেশে করোনাভাইরাসজনিত অসুস্থতায় ২৪ ঘণ্টায় ২৪ জনের মৃতু্য হয়েছে। তাদের মধ্যে পুরুষ ১৯ ও নারী ৫ জন। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৫ হাজার ৭২৩। একই সময়ে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন ১ হাজার ৫৪৫ জন। ফলে এ পর্যন্ত ৩ লাখ ৯৩ হাজার ১৩১ জনের ভাইরাসটি শনাক্ত হলো।

প্রতিদিনের মতো বুধবার বিকালে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত করোনাভাইরাসবিষয়ক এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সারাদেশে করোনার সর্বশেষ সংক্রমণ পরিস্থিতি পর্যালোচনায় মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে বুধবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় ১১০টি পরীক্ষাগারে ১৪ হাজার ৯১টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এরপর যাচাই-বাছাই শেষে ১৪ হাজার ৮৬টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ সময়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন আরও ১ হাজার ৫৪৫ জন। ফলে দেশে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৩ লাখ ৯৩ হাজার ১৩১ জনে দাঁড়াল। এ পর্যন্ত মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২২ লাখ ছয় হাজার ৪১১টি।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৭০৪ জন। এ নিয়ে মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা ৩ লাখ ৯ হাজার ৪৪৫ জন হলো। ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার তুলনায় রোগী শনাক্তের হার ১০ দশমিক ৯৭ শতাংশ। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষার তুলনায় রোগী শনাক্তের হার ১৭ দশমিক ৮২ শতাংশ। রোগী শনাক্তের তুলনায় সুস্থতার হার ৭৮ দশমিক ৫৬ এবং মৃতু্যর হার ১ দশমিক ৪৬ শতাংশ। এ পর্যন্ত করোনায় মোট মৃতের মধ্যে পুরুষ ৪ হাজার ৪০৪ জন (৭৬ দশমিক ৯৫ শতাংশ) ও নারী ১ হাজার ৩১৯ জন (২৩ দশমিক ৫ শতাংশ)।

বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত ২৪ জনের মধ্যে বিশোর্ধ্ব ১ জন, চলিস্নশোর্ধ্ব ২ জন, পঞ্চাশোর্ধ্ব ৮ জন এবং ষাটোর্ধ্ব ১৩ জন। বিভাগওয়ারি গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত ২৪ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ১৭ জন, চট্টগ্রাম ৩, রাজশাহী ২, খুলনায় ১ এবং রংপুর বিভাগে ১ জন ছিলেন। তবে গত একদিনে দেশের ৩ বিভাগ, যথা- বরিশাল, সিলেট এবং ময়মনসিংহে করোনায় আক্রান্ত হয়ে কোনো রোগীর মৃতু্য হয়নি।

এ পর্যন্ত সর্বমোট করোনায় মৃত ৫ হাজার ৭২৩ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ২ হাজার ৯৩৭ জন, চট্টগ্রামে ১ হাজার ১৪৪, রাজশাহীতে ৩৬৭, খুলনায় ৪৫৯, বরিশালে ১৯৭, সিলেটে ২৪০, রংপুরে ২৬০ এবং ময়মনসিংহ বিভাগে ১১৯ জনের মৃতু্য হয়েছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর আরও জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে রাখা হয়েছে ১৫৫ জনকে। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১২ হাজার ১৬৪ জন। ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ২১৫ জন। এখন পর্যন্ত ছাড় পেয়েছেন ৭২ হাজার ৪৭৫ জন এবং আইসোলেশন করা হয়েছে ৮৪ হাজার ৬৩৯ জনকে।

এছাড়া প্রাতিষ্ঠানিক ও হোম কোয়ারেন্টিন মিলিয়ে ২৪ ঘণ্টায় কোয়ারেন্টিন করা হয়েছে ৬২৪ জনকে। কোয়ারেন্টিন থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় ছাড় পেয়েছেন ৫৭০ জন। এখন পর্যন্ত ছাড় পেয়েছেন ৫ লাখ সাত হাজার ৯৩৩ জন এবং কোয়ারেন্টিন করা হয়েছে ৫ লাখ ৪৭ হাজার ৮১৩ জনকে। বর্তমানে কোয়ারেন্টিনে আছেন ৩৯ হাজার ৮৮০ জন।