ঘূর্ণিঝড় আম্পান: পটুয়াখালীত নিহত ২

সুপার সাইক্লান ‘আম্পান’ এর প্রভাবে দক্ষিণ উপকূল সংলগ্ন সাগরতীরে উচ্চ ঢেউ আছড়ে পড়ছে। বাতাসের তীব্রতা বেড়েই চলছে। সন্ধ্যায় গলাচিপা উপজেলার পানপট্টি এলাকায় ঝড়ে গাছের ডাল ভেঙে পরে ৫ বছরের এক শিশু রাশেদ মারা গেছেন বলে নিশ্চিত করছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার।

এছাড়া কলাপাড়ায় জনসচেতনতামূলক প্রচার চালাতে গিয়ে ধানখালীর ছৌলাবুনিয়া এলাকায় খালে নৌকা ডুবে নিখাঁজ সিপিপি’র দলনেতা শাহ আলম এর মরদেহ ৯ ঘণ্টা পর উদ্ধার করেছ ডুবুরি দল।

ঘূর্ণিঝড় আম্পানের ক্ষয়-ক্ষতি মনিটরিং করার জন্য জেলা ও উপজেলায় ১০টি কট্রোল রুম খোলা হয়েছে।

জেলায় মাট ৭৫৩ টি আশ্রয় কেন্দ্রে শুকনা খাবার পৌঁছে দেয়া হয়েছে বলে জানান জেলা প্রশাসক মতিউল ইসলাম চৌধুরী।

আশ্রয় কেন্দ্রে অবস্থান করা মানুষদের জন্য সেহরি এবং ইফতারের ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

পটুয়াখালীর সিভিল সার্জন জাহাংঙ্গীর আলম শিপন জানান, ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানার পর পরবর্তী চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে জেলায় ৩২৫ মেডিকেল টিম প্রস্তুত রাখা হয়েছে।